মুটিয়ে যাচ্ছেন? উপায় কী?

612

মোটা হলে কি আর মন ভালো থাকে। খাবার হজম করে তাকে এনার্জিতে পরিণত করার ক্ষমতা কমতে থাকে। তাই নির্দিষ্ট পরিমাণ খাবার কম বয়সে খেলে শরীরে যতটা চর্বি জমে, বেশি বয়সে তা খেলে চর্বির পরিমাণ বাড়ে। কিন্তু বয়স তো বাড়বেই। মেটাবলিজম-ও কমবে। কিন্তু কিছু সহজ উপায়ে এই হ্রাস রোধ করা যায়।

 

গ্রিন টি
গ্রিন টির মধ্যে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট শরীরের জন্য খুব ভালো। কিন্তু তার পাশাপাশি এর মধ্যে থাকা ক্যাটেচিন মেটাবলিজম বাড়াতে সাহায্য করে। ফ্যাটঅক্সিজেশন এবং থার্মোজেনেসিস-এর মাধ্যমে শরীরে চর্বির পরিমাণ কমায়। দিনের মাথায় দু’-তিন কাপ গ্রিন টি সহজে মেটাবলিজম বাড়াতে পারে। এই চা ঠান্ডা করেন, আইসড গ্রিন টি-ও খেতে পারেন।

ব্যায়াম করুন
যারা নিয়মিত ব্যায়াম করেন না, তাঁদের মেটাবলিক রেট খুবই কমে যায়। তাই যত শীঘ্র সম্ভব ব্যায়াম শুরু করুন। আর যাঁরা ব্যায়াম করেন, তাঁরা ব্যায়ামের পরিমাণ অবশ্যই বাড়ান। এতে চর্বি গলবে এবং মেটালিজম বাড়বে।

প্রোটিন খান বেশি
প্রোটিন খেলে মোটা হয়ে যান বলে মনে হয়? একেবারেই ভুল মনে হয়। কারণ শরীর যত তাড়াতাড়ি ফ্যাট বা কার্বোহাইড্রেট হজম করতে পারে, প্রোটিন হজম করতে তার চেয়ে অনেক বেশি সময় লাগে। এই কারণে ব্রেকফাস্টে বেশি প্রোটিন খেলে, পেট অনেক বেশি সময়ের জন্য ভর্তি থাকে। তাতে চর্বি জমার আশঙ্কা কমে।

মাঝে মাঝেই দাঁড়ান
আপনি কি ডেস্কের কাজের সঙ্গে যুক্ত? এবং অফিসের বেশির ভাগ সময়টাই কি আপনাকে বসে কাটাতে হয়? তাহলে আপনার মেটাবলিজম কমতে বাধ্য। তাই মাঝে মাঝেই একটু দাঁড়িয়ে নিন। প্রতি ২০ মিনিট অন্তর এক-দু’মিনিটের জন্য দাঁড়িয়ে নিলে মেটাবলিজম কিছুটা বাড়ে। হজম ক্ষমতা বাড়ে।

মাখন নয় নারকেল তেল
বিশেষজ্ঞরা বলছেন, নারকেল তেলে রয়েছে মিডিয়াম চেন ফ্যাট। মিডিয়াম চেন ফ্যাট হজম হয় অনেক সহজে। দীর্ঘ চেন ফ্যাট শরীরে প্রচুর চর্বি তৈরি করতে পারে। কিন্তু মিডিয়াম চেন ফ্যাট তা করে না। তাই দীর্ঘ চেন ফ্যাট থাকে এমন জিনিস, যেমন মাখন বাদ দিয়ে নারকেল তেল খান। এতে মেটাবলিজম অনেকটাই বাড়ে।

মাছ খান
মাছ খেলে মেটাবলিজমের পরিমাণ বাড়ে। এর পিছনে রয়েছে ওমেগা থ্রি-র ভূমিকা। বিশেষজ্ঞদের মতে, প্রাণিজ প্রোটিনের সূত্র যদি মাছ হয়, তাহলে উপকার আরও বেশি। কারণ এতে রয়েছে লেপটিন হরমোন। এই হরমোন মেটাবলিজিম বাড়াতে সাহায্য করে। এবং হজম ক্ষমতা বাড়ায়।

মশলাদার খাবার খান
মশলাদার খাবার খেলে মেটাবলিজম বাড়ে। শুনে অবাক লাগলেও কথাটা সত্যি। বিশে, করে খাবারে গোলমরিচের পরিমাণ বেশি থাকলে মেটাবলিজম বেড়ে যায়। সেক্ষেত্রে খাবার হজম হয় তাড়াতাড়ি। চর্বির পরিমাণও কমে। ৮। ঠান্ডা জল খান ঠান্ডা পানীয় নয়, ঠান্ডা জল খান। কারণ ঠান্ডা পানীয়ে চিনির পরিমাণ অনেক বেশি হয়। ফলে তাতে ক্যালোরি থাকে। তাই কোল্ড ড্রিংক মেটাবলিজমই কমায় না, সরাসরি ওজনও বাড়িয়ে দেয়। কিন্তু ঠান্ডা জম খেলে মেটাবলিজম যেমন কমে, তেমনই খাবারের থাকা চর্বি শরীরে চেপে বসে না।

ঠান্ডা জল খান
ঠান্ডা পানীয় নয়, ঠান্ডা জল খান। কারণ ঠান্ডা পানীয়ে চিনির পরিমাণ অনেক বেশি হয়। ফলে তাতে ক্যালোরি থাকে। তাই কোল্ড ড্রিংক মেটাবলিজমই কমায় না, সরাসরি ওজনও বাড়িয়ে দেয়। কিন্তু ঠান্ডা জম খেলে মেটাবলিজম যেমন কমে, তেমনই খাবারের থাকা চর্বি শরীরে চেপে বসে না।