মুখে ব্রণ? ঢেকে রাখবেন কিভাবে

405

যাদের মুখের ত্বক খুব ভালো, প্রায় কোনও সমস্যাই হয় না, তাঁদের ক্ষেত্রেও গরমকালে ব্রণর উৎপাত অল্পস্বল্প হয়ে থাকে। অনেক সময় হজমের সমস্যা থেকেও মুখে এই জাতীয় গোটা বেরোয় বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। একে ঠেকিয়ে রাখার উপায় নেই।

কিন্তু একই সময় যদি পড়ে যায় কোনও বিয়ের অনুষ্ঠান, বা পার্টি বা কর্পোরেট মিটিং এবং প্রেজেনটেশন- তাহলে এই ব্রণ নিয়ে সেখানে হাজির হওয়াটা সকলের জন্যই একটু সমস্যার। তবে খুব সহজে একে ঢেকে যায়। রইল তেমনই কয়েকটি রাস্তা।

১। ময়শ্চারাইজার এবং প্রাইমার
মনে রাখবেন, পরিষ্কার ত্বক এই ধরনের সমস্যাকে ঢাকার জন্য সবার আগে দরকার। তাই ব্রণ বা গোটা বেরোলে প্রথমেই খুব ভালো মানের ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন। পরিষ্কার মুখ শুকনো করে, তার ওপর ময়শ্চারাইজার লাগান। যাঁদের তৈলাক্ত ত্বক, তাঁদের ক্ষেত্রেও ময়শ্চারাইজারের প্রয়োজন হয়- এটাও মনে রাখবেন। ময়শ্চারাইজারের ওপর প্রয়োগ করুন ফেস প্রাইমার। এই প্রাইমার লাগানোটাও খুব দরকার। কারণ সরাসরি গোটা বা ব্রণর ওপর মেকআপ প্রয়োগ করলে সেখানে প্রদাহ হতে পারে। আর শুধু ময়শ্চারাইজারের ওপর মেকআপ লাগালে গরমে তা নষ্ট হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। তাই সব দিক বিচার করে প্রাইমার ব্যবহার করাটা খুব দরকারি। তার ওপর মেকআপ প্রয়োগ করে ঢেকে দিন এইসব ব্রণ বা গোটা।

২। লেয়ারের ব্যবহার
যে সমস্ত ব্রণ বা গোটা একটু লালচে, তাদের ঢাকার জন্য লেয়ার প্রয়োগ করতে পারেন। লালচে ব্রণ ঢাকার জন্য হলুদ কালার কারেকটর ব্যবহার করুন। এতে ব্রণ বা গোটার লালচে রংটা অনেকটা ঢাকা পড়ে যাবে। তবে এই অবস্থায় ছেড়ে দেবেন না। কারণ সেক্ষেত্রে কালার কারেকটরটি ঝরে পড়ে যাওয়ার অশঙ্কা থাকে। তাই অবশ্যই তার ওপর লাগান তেলবিহীন পাউডার। এই অয়েল ফ্রি পাুডার আপনার মুখের কালার কারেকটর বা ফাউন্ডেশনকে সারাদিন ধরে রাখবে। ব্রণ বা গোটা প্রকাশ্যে আসবে না।

৩। বিউটি স্পট বানিয়ে ফেলুন
মুখে খুব ছোট ব্রণ বা গোটা বেরিয়েছে? যদি সেটা সংখ্যায় একটা মাত্র হয়, তাহলে খুব সহজেই তাকে আপনার বিউটি স্পট বানিয়ে ফেলুন। কীভাবে? বাদামি রঙের আই লাইনার পেন্সিল ব্যবহার করে। এই গোটার বা ব্রণর ওপর ওই পেন্সিল দিয়ে সুন্দর করে একটা বিন্দু বানিয়ে দিন। যাঁরা আপনাকে দেখবেন, তাঁরা লক্ষ্যই করবেন না, ওটা আসলে একটা ব্রণ। বরং ভাববেন, ওটা একটা বিউটি স্পট।

৪। বরফ লাগান
মুখে গোটা বা ব্রণ বেরোনর পিছনে রয়েছে মৃত শ্বেতকণিকারা। ত্বকের নীচে এই শ্বেতকণিকা জমা হয়ে এই ব্রণ তৈরি করে। আপনি নিজেই দেখেছেন, হালকা গরম শুকনো সেঁক দিলে সেটা ক্রমে ফুলে ওঠে এবং ক্রমে ফেটে যায়। কিন্তু ভিতরে জমে থাকা এই শ্বেতকণিকাদের এভাবে বের করে দেওয়াটা আদৌ খুব স্বাস্থ্যকর কি না, তা একমাত্র চিকিৎসকই পরীক্ষা করে বলতে পারবেন। তবে যেদিন আপনার পার্টি রয়েছে, সেদিন এই পদ্ধতি প্রয়োগ করা মোটেই কাজের কথা নয়। কারণ সেদিন ওই স্থান যেবানে লাল হয়ে থাকবে, যেভাবে প্রদাহ হবে, তা মেকআপ বরবাদ করে দিতে পারে। বরং আপনি উল্টো পদ্ধতিটা নিতে পারেন। ওই স্থানে বরফ প্রয়োগ করুন। তাতে ব্রণ বা গোটা অনেকটাই বসে যাবে। এই ফ্ল্যাটন হয়ে যাওয়া গোটাকে খুব সহজেই মেকআপ দিয়ে ঢেকে দিতে পারবেন ওই দিনের মতো।

৫। কনসিলার ব্যবহার করুন
অনেকই মনে করেন ব্রণ বা গোটা ঢাকার জন্য কনসিলর ব্যবহার করাটা খুব কাজের। কিন্তু মনে রাখবেন লিকুইড বা তরল কনসিলারের থেকে মিনারেল কনসিলার ব্যবহার করাটা বেশি উপকারি। কারণ এই জাতীয় কনসিলার শুধুমাত্র ব্রণ বা গোটা ঢেকে রাখবে তাই নয়, এই জাতীয় কনসিলার ব্রণ বা গোটাকে তাড়াতাড়ি শুকিয়ে যেতেও সাহায্য করে।