ভ্রমণে কী খাবেন আর কী খাবেন না

370
ছবি: সংগৃহীত

কোথাও ঘুরতে গেলে খাবার নিয়ে চিন্তিত থাকি। কী খাব আর কী খাব না তাই নিয়ে আমাদের চিন্তার শেষ থাকে না। ভ্রমণের সময় প্রোটিন-জাতীয় খাবার আপনার ক্ষুধাভাব দূর করবে। আর বিভিন্ন ধরনের মিষ্টিজাতীয় খাবার ক্ষুধাকে বাড়িয়ে দেবে। পুষ্টিবিদদের এমন সব তথ্য জানা গেছে বিভিন্ন স্বাস্থ্যবিষয়ক প্রতিবেদন থেকে।

এবার চলুন দেখে নেওয়া যাক ভ্রমণের সময় কী খাবেন আর কী খাবেন না-

আপেল
একটি মাঝারি সাইজের আপেলে রয়েছে ৮০ থেকে ১০০ ক্যালোরি, ৫ গ্রাম ফাইবার। এটি আপনার শরীরে প্রাকৃতিক সুগারের কাজ করবে এবং পানি শূন্যতারোধেও সাহায্য করবে। ভ্রমণের সময় একটি প্লাস্টিকের ব্যাগে এটি বহন করা যেতে পারে।

এক কাপ ওটমিল
ভ্রমণে বের হওয়ার আগে এক কাপ ওটমিল খেতে পারেন। অথবা এককাপ পরিমাণ ওটমিল সঙ্গে করে নিয়েও যেতে পারেন। প্রতিটি কাপে রয়েছে ১৯০ ক্যালোরি,৭ গ্রাম প্রোটিন এবং ৮ গ্রাম ফাইবার। গরম পানির মধ্যে ওটমিল দিয়ে খেতে পারেন। এটি আপনার শরীরের শর্করার মাত্রা ঠিক রাখবে।

ফল এবং বাদামের বার
সাধারণত প্রতিটি বাদামের বারে থাকে ১৯০ ক্যালোরি, ৬ গ্রাম প্রোটিন এবং তিন গ্রাম ফাইবার। এটি ভ্রমণে খাওয়ার জন্য আদর্শ। কারণ এটি আপনি ব্যাগে করে সঙ্গে নিতে পারেন। তবে ক্যানডি বার এড়িয়ে চলুন। কেবল ফল বা বাদামেরই বার খান।

পনির
এতে রয়েছে ৮০ ক্যালোরি এবং ৭ গ্রাম প্রোটিন। পনিরও প্রোটিনের চমৎকার উৎস। এটি শরীরের শর্করার পরিমাণ সঠিক রাখতে সাহায্য করে। শরীরে শক্তিকে ধরে রাখে। কর্মক্ষমতা বাড়ায়।

গ্রিক দই
যদি বিমানে ভ্রমণ করেন তবে এয়ারপোর্টের দোকানগুলোতে গ্রিক দই খুঁজে দেখতে পারেন। প্রতিটি দইয়ের কনটেইনারে রয়েছে ১৭০ ক্যালোরি এবং ২৩ গ্রাম প্রোটিন। এটিও ভ্রমণের জন্য একটি চমৎকার খাবার হতে পারে।

ফল এবং বাদামের মিক্সড
ফল এবং বাদামের মিশ্রণের ১.৪ আউন্সে রয়েছে ২০০ ক্যালোরি, ৫ গ্রাম প্রোটিন এবং ৩ গ্রাম ফাইবার। চকোলেট ক্যান্ডি বা দই আপনার জন্য বহনে অসুবিধা তৈরি করতে পারে। কিন্তু বাদাম ও ফলের মিশ্রণ বহন করতে সুবিধাই হবে আপনার।

ঠাণ্ডা আঙ্গুর
ভ্রমণে খেতে পারেন ঠাণ্ডা আঙ্গুর। এটি আপনাকে সতেজ রাখবে এবং ভিন্ন ধরনের স্বাদও দেবে। পুষ্টিবিদ বলেন, এটি আপনাকে তৃপ্তি দেবে এবং সতেজ অনুভূতিও দেবে। পাশাপাশি এর রস ভ্রমণের সময় শরীরের হওয়া এক ধরনের শুষ্কভাব থেকেও রক্ষা করবে আপনাকে।

সিদ্ধ ডিম
ভ্রমণে আপনি খুব ভালো করে সিদ্ধ করা ডিমও খেতে পারেন। এটি প্রোটিনের একটি চমৎকার উৎস এবং বহনেও সুবিধা।

পেস্তা বাদাম
৫০টি পেস্তা বাদামে রয়েছে ১৬০ ক্যালোরি। ৫ গ্রাম প্রোটিন এবং ২ গ্রাম ফাইবার। এটি উচ্চ ফাইবার এবং প্রোটিনের বেশ ভালো উৎস। ভ্রমণের সময় এটিও খেয়ে দেখতে পারেন।

সূত্র: কালের কন্ঠ