বিমানে ওঠার আগে এই বিষয়গুলো না জানলে বিপদে পড়বেন

199

এসব বিষয় সম্পর্কে না জানলে নিশ্চিত বিপদে পড়বেন। সাধারণত কোন দেশ ভ্রমণে পাসপোর্টের ন্যূনতম মেয়াদ ৬ মাস, ৩ মাস, ০৮ মাস অথবা ভ্রমণকালীন অবস্থানের সময় পর্যন্ত থাকতে হয়। অনাকাঙ্খিত ঝামেলা এড়াতে পূর্বেই জেনে নিন আপনি যে দেশ ভ্রমণ করছেন সেখানে প্রবেশে পাসপোর্টের ন্যূনতম কত দিন মেয়াদ থাকা প্রয়োজন।

২। টিকেট সংগ্রহের সময় ভ্রমণকারীর নিজের মোবাইল নং এবং ই-মেইল এড্রেস সরবরাহ করুন যাতে ফ্লাইট বাতিল বা বিলম্ব হলে আপনার সাথে জরুরি যোগাযোগ করতে পারে।

৩। টিকেট সংগ্রহের সময় জেনে নিন আপনি কত কেজি মালামাল বহন করতে পারবেন।

৪। টিকিট সংগ্রহের সময় জেনে নিন আপনি কি কি পণ্য বহন করতে পারবেন।

৫। বৃদ্ধ, অসুস্থ্য ব্যক্তি, অন্তঃসত্তা মহিলা থাকলে সে তথ্য পূর্বেই এয়ারলাইন্সকে সরবরাহ করুন। ৩৩ (তেত্রিশ) সপ্তাহের বেশি অন্তঃসত্ত্বা মহিলা এয়ার ট্রাভেলের ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট এয়ারলাইন্সের মেডিকেল বোর্ডের অনুমতি প্রয়োজন হয়। অটিস্টিক, অসুস্থ ও বৃদ্ধ ব্যক্তির ক্ষেত্রে ফিটনেস সার্টিফিকেট চাইতে পারে।

৬। অসুস্থ বা বৃদ্ধ যাত্রীর হুইল চেয়ার লাগলে পূর্বেই এয়ারলাইন্সকে অবহিত করুন।

৭। নির্ধারিত Weight allowance এর বেশি পণ্য পরিবহনের প্রয়োজন হলে বাড়তি চার্জ দিতে হবে। এয়ারলাইন্স ভেদে এ চার্জ ভিন্ন হয়ে থাকে। সংশ্লিষ্ট এয়ারলাইন্সের ওয়েব সাইট থেকে এ তথ্য সংগ্রহ করতে পারেন।

৮। নির্ধারিত দিনে যাত্রার পূর্বে আপনার মেইল চেক করে নিশ্চিত হউন ফ্লাইট সিডিউলে কোন পরিবর্তন আছে কিনা, ট্রাভেল এজেন্সী/এয়ারলাইন্সকে ফোন করেও জেনে নিতে পারেন।

৯। বিদেশ ভ্রমণে সর্বোচ্চ ৫,০০০/- (পাঁচ হাজার) ডলার বা সম মূল্যের বৈদেশিক মুদ্রা এনডর্স (Endorsement) করিয়ে নিন। এনডর্সমেন্ট ব্যতিত ভ্রমণ করতে পারবেন না । শিক্ষা ও চিকিৎসার ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র প্রদর্শন সাপেক্ষে ১২,০০০/- (বার হাজার) মার্কিন ডলার বা সমমূল্যের বৈদেশিক মুদ্রা নিতে পারবেন।

১০। ১০,০০০/- টাকার বেশি দেশীয় মুদ্রা সাথে রাখবেন না।

১১। মূল্যবান সামগ্রী যেমন-টাকা, অলংকার, মোবাইল, ঘড়ি, ল্যাপটপ, ট্যাব, জরুরি ঔষধপত্র, যাত্রা সংশ্লিষ্ট প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট চেকইন লাগেজে রাখবেন না।

১২। ট্যুরিস্ট ভিসার ক্ষেত্রে আপ-ডাউন টিকেট, হোটেল বুকিং ডকুমেন্ট, এনডর্সমেন্ট অবশ্যই থাকতে হবে।

১৩। টিকেট সংগ্রহের সময় আপনার পাসপোর্ট, ভিসার নামের সাথে টিকেটের নাম মিলিয়ে নিন। পাসপোর্ট ভিসা ও টিকেটের নামের অমিল হলে চেকইন, ইমিগ্রেশন এবং আই.এন.এস চেকিং এ বোর্ডিং ডিনাই হতে পারে।

১৪। টিকিট সংগ্রহের সময় জেনে নিন আপনার টিকেট রিফান্ডেবল না নন রিফান্ডেবল, নন রিফান্ডেবল টিকেটের ক্ষেত্রে ফ্লাইট মিস হলে রিসিডিউল হবে না। সম্পূর্ণ নতুন টিকেট কেটে ভ্রমণ করতে হবে।

১৫। আপনার দীর্ঘ ভ্রমণ পথে ৮ ঘণ্টা বেশি যাত্রা বিরতি থাকলে ঐ দেশের ভিসা লাগতে পারে কারণ ০৮ (আট) ঘণ্টার বেশি যাত্রা বিরতির ক্ষেত্রে এয়ারলাইন্সের Accommodation avail করতে ঐ দেশের ভিসার প্রয়োজন হবে অন্যথায় প্রয়োজন নাই।

১৬। ফ্লাইং টাইমের (Flying Time) তিনঘণ্টা পূর্বে অবশ্যই এয়ারপোর্টে উপস্থিত থাকবেন। তা নাহলে প্রবেশ গেইট, চেকইন, ইমিগ্রেশন এর দীর্ঘ আনুষ্ঠানিকতার কারণে ফ্লাহট মিস হতে পারে।

১৭। পাসপোর্টের মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে কিন্তু ঐ পাসপোর্টে সংযুক্ত ভিসার মেয়াদ থাকলে দুটি পাসপোর্ট বহন করতে হবে।

১৮। ক্রেডিট কার্ড দিয়ে টিকেট সংগ্রহের ক্ষেত্র ভেরিফিকেশন চাইতে পারে এজন্য চেকইন এর সময় ক্রেডিট কার্ড সাথে রাখুন। অন্য কারো ক্রেডিট কার্ড দিয়ে টিকেট সংগ্রহ করলে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে সংশ্লিষ্ট এয়ারলাইন্সের স্থানীয় অফিসে গিয়ে ভেরিফিকেশন করিয়ে নিন। অন্যথায় বোর্ডিং ডিনাই করতে পারে।

১৯। বেল্ট থেকে লাগেজ গ্রহণের সময় নিশ্চিত হউন আপনার ব্যাগটি কাটা, ভাঙা, ছেড়া কিনা। এ রকম কিছু চোখে পড়লে এয়ারলাইন্স কিংবা লস্ট এন্ড ফাউন্ড-এ নির্ধারিত ফরমে অভিযোগ করুন। লস্ট এন্ড ফাউন্ড ০১ নং বেল্টের পাশে অবস্থিত।

২০। কোন কারণে ব্যাগেজ না পেলে লস্ট এন্ড ফাউন্ড ডেস্ক অথবা সংশ্লিষ্ট এয়ারলাইন্স থেকে পিআইআর (Property Irregularate Report) ফরম সংগ্রহ করে পূরণপূর্বক জমা দিন। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কোর্ট-কে অবহিত করুন। ০১৩০৪-০৫০৬০৩

২১। আগমন কিংবা বহির্গমনে এয়ারপোর্ট অভ্যন্তরে কোন কিছু হারিয়ে গেলে ডিএসও বা ডিউটি সিকিউরিটি অফিসার-কে অবহিত করুন । ডি.এস.ও-০১৯৪০-৪৪৫০৫৫

২২। নিজের ইমিগ্রেশন কার্ড নিজেই পূরণ করুন অথবা আপনার সুপরিচিত সহযাত্রীর সহযোগিতা নিন। অন্যথায় আপনার মোবাইল নং এবং পাসপোর্ট নম্বর ব্যবহার করে কেউ প্রতারণা করতে পারে।

২৩। ভ্রমণের পূর্বেই করারোপযোগ্য পণ্যের তালিকা সম্পর্কে জেনে নিন।

২৪। নির্ধারিত ওয়েট এলাউন্স (Weight allowance) এর বাইরে যৌক্তিক সংখ্যক বই, ছোট ক্যামেরা, বাইনোকুলার, শিশুখাদ্য, শিশু পরিবহনের বাস্কেট, ফোল্ডিং হুইল চেয়ার, ক্রাচ, ওয়াকিং স্টিক এবং অন্যান্য যন্ত্রাংশ, যার উপড় যাত্রী সম্পূর্ণরুপে নির্ভরশীল, নিতে পারবেন ।

২৫। অনাকাংখিত ঝামেলা এড়াতে কর আরোপযোগ্য কোন পন্য পরিবহন করলে কাস্টমস কর্তৃপক্ষের নিকট নির্ধারিত ফরমে পূর্বেই ঘোষণা দিন। ব্যত্য়য় হলে ট্যাক্সের পাশাপাশি জরিমানার মুখোমুখি হবেন।

২৬। প্রবাসী কর্মী হিসাবে যারা বিদেশে যান অবশ্যই বিএমইটি কার্ড করিয়ে নিন।

২৭। ইডি কার্ড (Weight allowance) পূরণ, ভিসা যাচাই এবং প্রবাস কর্ম সম্পর্কিত যে কোন বিষয় জানতে এবং প্রবাসী কর্মীর লাশ সম্পর্কিত তথ্য জানতে প্রবাসী কল্যাণ ডেস্কের সহযোগিতা নিন। প্রবাসী কল্যাণ ডেস্কের নং-০১৭১৮-৯২৪৯৯১, ০১৮১৯-২৬২১৭৪, ০২-৮৯০১০৪০

২৮। ভিসায় উল্লিখিত তারিখ বা জিও -তে উল্লিখিত তারিখের পূর্বে কোনভাবেই ভ্রমণ করতে পারবেন না।

২৯। এয়ারলাইন্স অনুসারে ব্যাগেজ পলিসি (ব্যাগেজ পলিসি) বা প্যাসেঞ্জার রাইটস ভিন্ন হয়ে থাকে। ভ্রমণের পূর্বেই সংশ্লিষ্ট এয়ারলাইন্সের ব্যাগেজ পলিসি বা প্যাসেঞ্জার রাইটস পড়ে নিন।

৩০। ভ্রমণের পূর্বে টিকেটে উল্লিখিত শর্ত সমূহ পড়ে নিন।

৩১। পোষা প্রাণী পরিবহন করতে চাইলেই পূর্বেই এয়ারলাইন্সের সাথে যোগাযোগ করে শর্ত সমূহ জেনে নিন। সাধারনতঃ পোষা প্রাণী (পেট এনিম্যাল) পরিবহনের ক্ষেত্রে (নির্ধারিত Weight allowance এর) অতিরিক্ত ফি প্রযোজ্য। এছাড়াও ভ্যাকসিনেশন সার্টিফিকেট, স্বাস্থ্য সনদ ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় দলিলাদি থাকতে হবে।

৩২। যে কোন উদ্ভিদ, শস্য দানা, বীজ আমদানির ক্ষেত্রে উপ-পরিচালক, উদ্ভিদ সংগনিরোধ স্টেশন, হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর, ঢাকা এর সাথে যোগাযোগ করতে হবে। যোগাযোগের নম্বর- ০১৭১৫৮২২৭২৫

৩৩। ভ্রমণের পূর্বে আপনার যাত্রার তারিখ ও সময় সম্পর্কে নিশ্চিত হউন। এয়ারপোর্টে সময় গণনা করা হয় আন্তর্জাতিক মান অনুসারে। সে মতে আপনার ভ্রমণের তারিখ ২১/০৬/১৯ তারিখ ০০৩০ টা হলে আপনাকে আসতে হবে ২০/০৬/১৯ তারিখ ফ্লাইং সময়ের ৩ ঘণ্টা পূর্বে অর্থ্যাৎ ২০ তারিখ রাত ৯.৩০ মিনিটে। আবার আপনার ভ্রমণের তারিখ ২১/০৬/১৯ তারিখ ১৫৩০ টা মিনিট হলে আপনাকে আসতে হবে ২১/০৬/১৯ তারিখ ১৫.৩০ মিনিটের ৩ ঘণ্টা পূর্বে অর্থাৎ দুপুর ১২.৩০ মিনিটে।

৩৪। দীর্ঘ ভ্রমণকালে ট্রানজিট পয়েন্ট ভিসা লাগবে কিনা পূর্বেই জেনে নিন। এক্ষেত্রে ট্রাভেল এজেন্সি বা সংশ্লিষ্ট এয়ারলাইন্সের সহযোগিতা নিন।

৩৫। যাত্রী হয়রানি বা ভোক্তা অধিকার লংঘিত হলে প্রতিকার পেতে ফোন করুন ০১৩০৪০৫০৬০৩ নম্বরে অথবা ইনবক্স করুন Magistrates all Airports ফেসবুক পেজে অথবা ই-মেইল করুন airport.magistrate.bd@gmail.com