বন্ধ্যত্বের বিশেষ কারন কি ?

38

বন্ধ্যত্বর জন্য নারী-পুরুষ উভয়ই দায়ী। একটি সময় বলা হতো, বন্ধ্যত্বের জন্য নারীরাই দায়ী। তবে বর্তমানে দেখা যাচ্ছে, বন্ধ্যত্বের জন্য ৫০ ভাগ ক্ষেত্রে পুরুষও দায়ী। আর এটি হচ্ছে জীবনযাপনের পদ্ধতি পরিবর্তনের কারণে।

এসব বিষয় নিয়ে এনটিভির নিয়মিত আয়োজন স্বাস্থ্য প্রতিদিন অনুষ্ঠানের ৩৪৩১তম পর্বে কথা বলেছেন অধ্যাপক ডা. ফিরোজা বেগম। বর্তমানে তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিটোম্যাটারনাল মেডিসিন বিভাগের চেয়ারম্যান হিসেবে কর্মরত।

প্রশ্ন : বন্ধ্যত্বের প্রধান কারণ কী?

উত্তর : মেয়েদের ক্ষেত্রে টিউবটা যদি কোনো কারণে ব্লক হয়ে যায়, তাহলে বন্ধ্যত্ব হতে পারে। যৌনবাহিত রোগ বা যক্ষ্মা ইত্যাদির কারণেও কিন্তু টিউবটা ব্লক হয়ে যায়। টিউব মানে নালি। যৌনবাহিত রোগ হয়ে কিন্তু নালিটা ব্লক হয়ে যেতে পারে। আবার যেমন টিউবার কলোসিস বা টিবির কারণে বন্ধ্যত্ব হতে পারে। আমরা ভাবি, টিবি কেবল ফুসফুসে হয়, তবে ফেব্রিক্স অঙ্গ প্রত্যঙ্গেও কিন্তু টিবি হয়। ইনটেসটেনাল টিবিটা সাধারণত প্যালভিক অঙ্গে যায়। তো মেয়েদের বেলায় আসলে টিউবাল সমস্যার কারণে বন্ধ্যত্ব হতে পারে।

আরেকটি হলো, ওভুলেশন বা ডিম্বোস্ফোটন যদি না হয়, তাহলে হতে পারে। মেয়েদের যদি ডিম্বোস্ফোটন না হয়, তাহলে তার বাচ্চা হয় না।

আর ছেলেদের বেলায় শুক্রকীটের পরিমাণ কম থাকতে পারে। শুক্রকীটের গতি কম থাকতে পারে। তার চেহারার গঠনগত ত্রুটি থাকতে পারে। একেবারই শুক্রকীট না থাকতে পারে। এ ধরনের গঠনগত সমস্যা হতে পারে। ছেলেদের প্রধানত শুক্রকীটের সমস্যা হয়। এ জন্য পুরুষের বন্ধ্যত্ব হয়।