Home » পুরান ঢাকার ঐতিহ্যবাহী খাবার যা না খেলেই নয়

পুরান ঢাকার ঐতিহ্যবাহী খাবার যা না খেলেই নয়

কর্তৃক BDHeadline

ঢাকার আদি অঞ্চলটি পরিচিত পুরান ঢাকা হিসেবে। প্রাচীন এই শহরটি গড়ে উঠেছিলো ৭০০ থেকে ১২০০ খ্রিষ্টাব্দের মধ্যে। নতুন ঢাকা এবং পুরান ঢাকার তফাৎ শুধু অবস্থান ও ইতিহাসেই না, তফাৎ মেলে ভাষার ক্ষেত্রেও। এখানে আছে বেশ কয়েকটি দর্শনীয় ও ভ্রমণ উপযোগী স্থান। যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য- লালবাগের কেল্লা, ঢাকেশ্বরী মন্দির, তারা মসজিদ, হোসেনী দালান, আহসান মঞ্জিল, শাঁখারিবাজার, বড় কাটরা, ছোট কাটরা, বাহাদুর শাহ পার্ক, খান মুহাম্মাদ মসজিদ, বিনত বিবির মসজিদ, রূপলাল হাউজ, আর্মেনীয় গীর্জা, চকবাজার শাহী মসজিদ, শায়েস্তা খান জামে মসজিদ ও বুড়িগঙ্গায় নৌকা ভ্রমণ। পুরান ঢাকার লোকজন বেশ ভোজনরসিক।

এখানে দেখা মেলে নানা রকম খাবারের। মসলাদার খাবার এখানে বেশি জনপ্রিয়। যদি আপনি ঘুরতে ভালোবাসার পাশাপাশি ভোজনরসিক হয়ে থাকেন, তবে পুরান ঢাকা হতে পারে আপনার জন্য দারুণ একটি জায়গা। জেনে নিন পুরান ঢাকার সেরা ১০টি খাবার সম্পর্কে, যা পুরান ঢাকা ভ্রমণকালে মিস করবেন না।

১. বাকরখানি
বাকরখানি মূলত মুঘল আমলের ঐতিহ্যবাহী এক ধরনের রুটি। রুটিটার প্রস্তুত প্রণালী ও ভাজার উপায় অন্যান্য রুটি থেকে একদমই আলাদা। পুরান ঢাকার মানুষেরা সকালের নাস্তায় চায়ে ভিজিয়ে এই খাবারটি খেতে বেশ পছন্দ করেন। শুধু পুরান ঢাকাতেই না, এর জনপ্রিয়তা আরো বিস্তৃত। এই জনপ্রিয়তাতেই দেশের বিভিন্ন জায়গায় এখন তৈরি হয় বাকরখানি। তবে পুরান ঢাকার বাকরখানির বিশেষত্বই আলাদা, যা অন্য জায়গায় পাওয়া যায় না। পুরান ঢাকার জিঞ্জিরার বরিশুর, লালবাগ, নাজিমুদ্দিন রোড, চানখাঁরপুল, কসাইটুলি, নাজিরাবাজার, নবাববাড়ি, নবরায় লেন ও সূত্রাপুরে বাকরখানির বেশ কিছু দোকান ও কারখানা আছে।

২. বিউটি লাচ্ছি
পুরান ঢাকার এক পরিচিত খাবার পানীয়ের দোকান ‘বিউটি লাচ্ছি’। এই লাচ্ছির প্রশংসা ছড়িয়ে আছে বহু জায়গায়। অনেক দূর দূরান্ত থেকে লোক আসে এই লাচ্ছি খেতে। এখানে পাওয়া যায় ১৫ টাকার শরবত, ৩০ টাকায় লাচ্ছি ও ৪০ টাকায় বিট লবণ দেয়া স্পেশাল এক লাচ্ছি। পুরান ঢাকার রায়সাহেব মোড় থেকে জনসন রোড ধরে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের দিকে কয়েক পা এগুতেই রাস্তার পশ্চিম পাশে মিলবে বিউটি লাচ্ছির দেখা। গুলিস্তান থেকে সরাসরি রিক্সাযোগেও যেতে পারবেন। পরিচিত এই নামটি শুনলে যে কেউই দেখিয়ে দিবে। তাই খুঁজে পেতে খুব বেশি ধকল যাবে না।

৩. কাচ্চি বিরিয়ানি
কাচ্চি বিরিয়ানি পুরান ঢাকার বেশ জনপ্রিয় একটি খাবার। স্বাদের দিক থেকেও পুরান ঢাকার কাচ্চি বেশ জনপ্রিয় ও প্রশংসিত। বহু বছর ধরে কাচ্চি বিরিয়ানির এই স্বাদ, মান ও ঐতিহ্য টিকিয়ে রেখেছে পুরান ঢাকা। পুরান ঢাকায় রয়েছে বেশ কিছু খ্যাতনামা কাচ্চি বিরিয়ানির হোটেল। পুরান ঢাকার চাঁনখারপুলের গলির মুখে ঢুকলেই দেখা মেলে অসংখ্য হোটেলের। যেখানে প্রায় প্রতিদিনই ভীড় থাকে কাচ্চি বিরিয়ানি প্রিয়দের। এছাড়াও লালবাগ চৌরাস্তার মোড়ে রয়েল হোটেল, চাঁনখারপুলের নিরব হোটেল, নাজিম উদ্দিন রোড ও নাজিরা বাজারের কিছু হোটেল বেশ জনপ্রিয়।

৪. শাহী মোরগ পোলাও
শাহী মোরগ পোলাও পুরান ঢাকার মানুষের অত্যন্ত পছন্দের একটি খাবার। দুপুর ও রাতের খাবারে এর চাহিদা অনেক বেশি। অতিথি আপ্যায়নেও দেখা যায় শাহী মোরগ পোলাও। একবারের জন্য হলেও শাহী মোরগ পোলাওয়ের অসাধারণ স্বাদ নিতে চাইলে আপনার আসতে হবে পুরান ঢাকায়। চাঁনখারপুল, নাজিরা বাজার, নাজিম উদ্দিন রোড, লালবাগ মোড় ও জিঞ্জিরা এই জায়গাগুলোতে পেয়ে যাবেন দারুণ কিছু হোটেল।

৫. সুতি কাবাব
কাবাবের জন্য পুরান ঢাকার অনেক বেশি খ্যাতি। এখানে তৈরি হয় নানা রকম কাবাব। সুতি কাবাব তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য। পুরান ঢাকার বিভিন্ন গলিতে দেখা মেলে এই কাবাবের। ‘স্ট্রিট ফুড’ হিসেবে কাবাব বেশি জনপ্রিয় এখানে। আপনি পুরান ঢাকা ভ্রমণকালে বিভিন্ন গলিতে ছোট্টখাটো ভ্রাম্যমাণ দোকানেও দেখবেন বেশ লম্বা লাইন বা ভিড়, শুধুমাত্র কাবাবের জন্যই।

৬. ফুচকা
আপনি যদি ফুচকা ভালোবাসেন তবে আপনার উচিত পুরান ঢাকার ফুচকা একবারের জন্য হলেও খাওয়া। এখানের ফুচকার স্বাদ অন্যান্য জায়গার ফুচকা থেকে একেবারেই আলাদা। ফুচকায় পাবেন বিভিন্ন মসলার স্বাদ, টকেও পাবেন বৈচিত্র্য। শুধু মিষ্টি টক কিংবা ঝাল টক না, এখানে পাবেন আরো নানা রকম নতুন নতুন টকের স্বাদ। পুরান ঢাকার বিভিন্ন জায়গায়, গলিতে গলিতে পাওয়া যায় ফুচকা, যার স্বাদ কখনোই হতাশ করবে না। তবে চকবাজারের রাস্তার পাশে বেশ কিছু ছোট্ট দোকান রয়েছে, যেখানে পাবেন সেরা ফুচকার সন্ধান। তবে আপনার মতো ভোজনরসিকদের ভিড় ঠেলে বেশ সময় নিয়ে হাতে পেতে হবে ফুচকার থালাটি।

৭. মুড়ি ভর্তা
আমরা মোটামুটি ‘ঝাল মুড়ি’ বা ‘মুড়ি মাখা’ শুনেই অভ্যস্ত হলেও পুরান ঢাকায় এর নামে ‘মুড়ি ভর্তা’। তবে নামের পাশাপাশি ভিন্নতা আছে স্বাদেও। তাই হয়তো এই খাবারটাকে ঝালমুড়ির থেকে আলাদাই ভাবতে হবে। বিভিন্ন শাহী মসলার মিশ্রণে মুড়ির স্বাদটা জিভে লেগে থাকবে বহু সময়। এটি পুরান ঢাকার বেশ জনপ্রিয়তম খাবারের একটি। বিশেষ করে মসলা জাতীয় খাবারের মধ্যে এটি অন্যতম। বিশেষ বিশেষ মসলার মিশ্রণে পরিবেশন করা হয় মুড়ি, যার স্বাদ আপনি পুরান ঢাকা ছাড়া পাবেন না আর কোথাও। পুরান ঢাকার জিঞ্জিরা, লালবাগ কেল্লার মোড়, নাজিরা বাজার, চকবাজার এই জায়গাগুলোয় পেয়ে যাবেন। এছাড়াও অলিতে গলিতেও দেখা মিলবে অনেক।

৮. মিষ্টি
পুরান ঢাকায় আছে ঐতিহ্যবাহী বেশ কিছু মিষ্টির দোকান। সেখানে তৈরি হয় নানা রকম মিষ্টি। সবখানে পরিচিত সাধারণ কিছু মিষ্টির বাইরেও আছে জাফরান মিষ্টি ও শাহী চাপ মিষ্টি, যা অত্যন্ত জনপ্রিয়। পুরান ঢাকার লালবাগ কেল্লার মোড়ে মদিনা মিষ্টান্ন ভাণ্ডার বেশ জনপ্রিয়। এছাড়াও পুরান ঢাকার আরো বেশ কিছু জায়গায় পাওয়া যায় এই বিশেষ মিষ্টিগুলো।

৯. পুরি
‘ভাজা’ বা ফ্রাই ধরনের খাবারের আলাদা বিশেষত্ব রয়েছে পুরান ঢাকায়। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য পুরি। এখানে নানা রকমের পুরি পাওয়া যায়। আলু পুরি, ডাল পুরি, কিমা পুরি, মাংস পুরি, টাকি মাছের পুরি, সবজির পুরি সহ আরো নানা রকমের পুরি তৈরি হয় এখানে। পুরিগুলোকে পরিবেশন করা হয় বিশেষ রকমের ঝোল ও সালাদের সাথে। পুরান ঢাকার হোটেল ও ফুটপাতের বেশ কিছু দোকানে পাবেন নানা স্বাদের এই পুরির দেখা।

১০. মালাই চা
মালাই চায়ের জন্য পুরান ঢাকার খ্যাতি কম না। পুরান ঢাকার প্রায় সব গলিতেই পাওয়া যায় মালাই চা। মালাই চা বানানোর ক্ষেত্রে দোকানিরাও বেশ যত্নবান। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের পেছনে রয়েছে বেশ কিছু চায়ের দোকান। এছাড়াও বকশিবাজার, শাঁখারিবাজার, তাঁতিবাজার ইত্যাদি জায়গাগুলোতে বেশ ভালো স্বাদের মালাই চা পাওয়া যায়।

সম্পর্কিত পোস্ট