নিয়মিত শারীরিক মিলন দেহের কি উপকার করে, জানতেন?

320

চিকিৎসাবিজ্ঞানে বলে, যৌনতা হল একটি ব্যায়াম। সুস্থ থাকতে যা নিয়মিত করা উচিত। কিন্তু এমন সময় বা পরিস্থিতি আসে, যখন জীবন থেকে যৌনতা হারিয়ে যায়।

কারও সাময়িকভাবে, কারও বা সেই সব ক্ষেত্রে, অর্থাৎ যৌনতায় আচমকা দাঁড়ি পড়লে কী কী সমস্যা হতে পারে জানিয়েছে ‘আমেরিকান জার্নাল অফ মেডিসিন’–এ প্রকাশিত একটি গবেষণাপত্রে জানানো হয়েছে পাঁচটি বড় সমস্যার কথা।

১. ইরেক্টাইল ডিসফাংশন দেখা দিতে পারে। জেনে রাখুন, অন্তত ৮০ শতাংশ ক্ষেত্রে এমনটা হয়ে থাকে। ‘আমেরিকান জার্নাল অফ মেডিসিন’–এ প্রকাশিত একটি গবেষণাপত্রে জানানো হয়েছে, নিয়মিত শারীরিক মিলন পুরুষাঙ্গকে সুস্থ রাখে। সপ্তাহে যাঁরা অন্তত একদিন সেক্স করেন, তাঁদের ক্ষেত্রে আচমকা যৌনতা বন্ধ হয়ে গেলে ইরেক্টাইল ডিসফাংশনের সম্ভাবনা কিঞ্চিৎ কম, বা দেরিতে আসে।

২. যৌনতায় শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে। অর্থাৎ, আচমকা যৌনতা বন্ধ হয়ে গেলে প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যেতে বাধ্য।

৩. যৌনকামনা কমে যেতে বাধ্য। দেখা গিয়েছে, আচমকা যৌনতা বন্ধ হয়ে গেলে, প্রথম দিকে যৌনতার একটা প্রবল ইচ্ছা জেগে উঠতে পারে। কিন্তু দীর্ঘদিন যৌনতা না-থাকলে, তা ক্রমশ স্তিমিত হবে। তবে পুরোটাই নির্ভর করছে, কোন অবস্থায় যৌনতায় ছেদ আসছে? প্রবল মানসিক ঝড়ঝাপটা এলে যৌনতার ইচ্ছা একেবারে গোড়া থেকেই লুপ্ত হতে পারে।

৪. যৌনতা মনকে হালকা করে। রিল্যাক্সড থাকতে সাহায্য করে। স্বাভাবিকভাবেই যৌনতা না-থাকলে সেটি হারিয়ে যাবে জীবন থেকে।

৫. নিয়মিত যৌনতায় মানুষের মস্তিষ্ক অনেক বেশি সচল থাকে। অর্থাৎ, বুদ্ধিতে শান পড়ে নিয়মিত। স্মৃতিশক্তি এবং বুদ্ধিমত্তার সঙ্গে যৌনতার প্রত্যক্ষ সম্পর্ক প্রমাণিত হয়েছে একাধিক গবেষণায়। ফলে আচমকা যৌনতা হারিয়ে গেলে মস্তিষ্কে ঘাটতি হতেই পারে।