জেনে নিন মশা মারার সহজ পদ্ধতি

45

চিকুনগুনিয়া একটি মশাবাহিত আলফা ভাইরাসজনিত রোগ। এ রোগে জটিলতার কারণে ৫ দিন থেকে ১২ মাস পর্যন্ত ভোগান্তি হতে পারে এবং সাধারণ কাজকর্মে অসুবিধা হতে পারে, এমনকি চলাফেরা করতেও সমস্যা হতে পারে।

এমনকি এই রোগ জটিল আকারেও দেখা দিতে পারে। তাই মোকাবিলা করতে প্রয়োজন কিছু সমন্বিত পরিকল্পনা।

চিকুনগুনিয়া রোগ থেকে আলোচনায় এসেছে মশা। আর এই মশার কামড় থেকে রেহাই পেতে হয় নিজেকে মশারির মধ্যে লুকাতে হবে, আর না হয় মশা নিধনের ব্যবস্থা করতে হবে। এবার খুব সহজেই মশা মারার একটি কৌশল জানা গেছে।

যেভাবে মশা মারার ফাঁদ বানাবেন
একটি পাত্রে গুঁড়ো সাবান ভাল করে গুলিয়ে পাত্রটিকে জানালার ধারে রাখুন। বিশেষত যে জানালাটি দিয়ে মশা বেশি ঢোকে, সেই জানালার কাছে রাখুন। দেখবেন, ওই জানালা দিয়ে মশা ঢোকার সময় পানিতে বসবে আর টুপ করে ডুবে যাবে। মনে রাখবেন, পানি পেলে মশার সেখানে যাওয়ার একটি প্রবণতা থাকে। এভাবেই যে কোনো জলাধারে ডিটারজেন্ট দিয়ে রাখতে পারেন।

কেন এমনটা হয়?
ডিটারজেন্ট পানির সারফেস টেনশন কমিয়ে দেয়। ফলে মশা এবং তার লার্ভা ডুবে যায়। ফলে বাড়ির কোথাও পানি জমলে, সেখানে ডিটারজেন্ট ছড়িয়ে দিন। বর্ষাকালে এই টোটকা কাজে আসবেই। খরচ কম, কার্যকরীও ভালো।