ছেলের হাতে মারা গেলেন মা, বাবা হারালেন চোখ

310

কেরানীগঞ্জে মাদকাসক্ত ছেলের মারধরে বাবার চোখ হারানোর পর আহত মা মারা গেছেন। রুহিতপুর ইউনিয়নের মোগারচর পোড়াহটি গ্রামের এ ঘটনায় সোমবার দুপুরে ছেলেকে মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখান এলাকা থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

জানা যায়, সোমবার মাদকের টাকা না দেয়ায় ছেলে ইকবালের হাতে বেদম মারধরের শিকার হন পোড়াহাটি গ্রামের বাসিন্দা হাজী আহসান উল্লাহ (৭৫) ও তার স্ত্রী মনোয়ারা বেগম (৬৫)। লোহার রড ও জিআই পাইপ দিয়ে তাদের বেদম মারধর করা হয়।

এ পর্যায়ে জিআই পাইপ বাবার বাঁ চোখে ঢুকিয়ে দেয় ইকবাল। পরে তাদের চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসলে ইকবাল পালিয়ে যায়। আহত অবস্থায় বাবাকে ভর্তি করা হয় রাজধানীর একটি হাসপাতালে। সেখানে তার চোখে অস্ত্রোপচার হলেও চিরতরে বাঁ চোখের আলো নিভে গেছে।

অন্যদিকে বাড়িতে চিকিৎসাধীন ছিলেন মা মনোয়ারা বেগম। এ ঘটনায় পরদিন আহসান উল্লাহর মেয়ে মমতাজ বেগম বাদী হয়ে ভাই ইকবালসহ ৪ জনকে আসামি করে কেরানীগঞ্জ মডেল থানায় একটি মামলা করেন।

মামলার এজাহারে বাবা মাকে মারধরের বিষয়টি তুলে ধরা হয়। এ অবস্থায় রোববার মারা যান মা মনোয়ারা বেগম।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কেরাণীগঞ্জ মডেল থানার এসআই আ. জলিল জানান, তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখান থেকে ইকবালকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সে এলাকার একজন চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। সে নিজেও মাদকাসক্ত। তার বিরুদ্ধে কেরাণীগঞ্জ মডেল থানায় অস্ত্র, মাদকসহ একাধিক মামলা রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, আঘাতের কারণে আহসান উল্লাহর বাঁ চোখটি নষ্ট হয়ে গেছে। শারীরিকভাবে তিনি এখনও খুব অসুস্থ।

মায়ের মৃত্যুর বিষয়ে জানতে চাইলে এসআই আ. জলিল জানান, মনোয়ারা বেগম স্ট্রোক করে মারা গেছেন। ছেলের আঘাতের কারণে মারা গেছেন কিনা? তা বলতে পারছি না। তার পরিবারের পক্ষ থেকেও কেউ কোনো অভিযোগ করেনি। তবে এজাহারে আছে তাকে (মনোয়ারা বেগম) মারধর করা হয়েছিল।