Home » ছুটির দিনে ঘুরে আসুন তামান্না ওয়ার্ল্ড ফ্যামিলি পার্ক

ছুটির দিনে ঘুরে আসুন তামান্না ওয়ার্ল্ড ফ্যামিলি পার্ক

কর্তৃক BDHeadline

সময়ের অভাবে অনেকেই হুট করে দূরে কোথাও ট্যুরে যেতে পারেন না। তবে, আপনি যদি সময়কে ঠিকমতো কাজে লাগাতে পারেন, তাহলে একদিনেই কিন্তু ঘুরে আসা যায় দারুণ কোনো জায়গা থেকে। আর তা ঢাকার ভেতরে হলে তো কথাই নেই। সপ্তাহের যেকোনো দিন সময় বের করে কম সময়ে পরিবার-পরিজন নিয়ে ঘুরে আসতে পারেন তামান্না ওয়ার্ল্ড ফ্যামিলি পার্ক থেকে।

ঢাকার মিরপুরের শাহ আলী মাজার থেকে বেশ কিছুদূরে মিরপুর-আশুলিয়া বেড়িবাঁধ সড়কের গড়ান চটবাড়ী এলাকায় গড়ে উঠেছে তামান্না ওয়ার্ল্ড ফ্যামিলি পার্ক। ঢাকার কাছেই গড়ে উঠা এই বিনোদন কেন্দ্রটি ইতোমধ্যেই বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে।

বেসরকারি উদ্যোগে গড়ে ওঠা এই পার্ক নগরবাসীদের ভ্রমণের তৃষ্ণা মেটাচ্ছে। প্রায় এক দশক আগে যাত্রা শুরু করলেও পার্কটি তখন খুব কম পরিসরেই কার্যক্রম চালিয়েছিল। তবে, বর্তমানে পার্কটির পরিসর বৃদ্ধি করা হয়েছে কয়েকগুণ। যোগ করা হয়েছে বিনোদনের নানান আয়োজন।

পার্কের প্রবেশ-মুখেই গাছ-গাছালি ঘেরা নার্সারি চোখে পড়বে। প্রায় এক একর জায়গার ওপরে গড়ে ওঠা এই পার্কের ভেতরে আছে বিভিন্ন ধরনের রাইড। এই ফ্যামিলি পার্কে ওয়ান্ডার হুইল, হানিসুইং, বৈদ্যুতিক মিনি ট্রেন, সোয়ান অ্যাডভেঞ্চার, টুইস্টারম, প্যারাট্রুপার, রোলার কোস্টার, ‘মনোরেল’, ‘বৈদ্যুতিক মিনি ট্রেন’, ‘মেরি গো রাউন্ড’, ‘স্পেস শাটল’,প্যাডেল বোট ও কিডস রাইড ইত্যাদি রয়েছে।

পার্কজুড়ে সবুজের সমারোহ। নার্সারি থেকে চাইলে গাছের চারাও সংগ্রহ করতে পারবেন। নদীর ধারে বসে গল্প করার জন্য আছে ছাউনি দেয়া বসার ব্যবস্থা। পার্কের এক কোনায় ওপরে ছাউনি দেয়া চারপাশ খোলা সারি সারি কয়েকটি ঘর।

তুরাগ নদের শাখা চলে এসেছে পার্কের পাশে। বেলা গড়িয়ে বিকেল হলে শরতের ফুরফুরে বাতাস ঘরগুলোতে দোল দিয়ে যায়। আর তখন সেই বাতাসে গা এলিয়ে দিতে বেশ দারুণ লাগে।

সাঁতার কাটার জন্য পার্কের ভেতরে আছে একটি সুইমিংপুল, ঘণ্টার হিসাবে যে কেউ সেখানে সাঁতার কাটতে পারেন। জনপ্রতি ঘণ্টায় খরচ পড়বে ২০০ টাকা।

তুরাগ নদের পাড় ঘেঁষে গড়ে ওঠায় পার্কে সবসময় পাওয়া যায় প্রকৃতির নির্মল বাতাস। বেড়িবাঁধ সড়ক ধরে এগোতে থাকলে নদীর ধারের পরিবেশ বেশ উপভোগ্য।

আশেপাশের এলাকার অনেকেই বিকেলবেলা ঘুরতে আসেন বেড়িবাঁধ এলাকায়। সাপ্তাহিক ও সরকারি ছুটির দিনে বেশ জনসমাগম হয় এখানে।

ঘুরতে ঘুরতে খিদে পেয়ে গেলে উদরপূর্তির জন্য পার্কের ভেতরে আছে রেস্তোরাঁ। রেস্তোরাঁয় চটপটি, নুডলস থেকে শুরু করে কাবাব, লুচি, ফ্রাইড রাইস, চিকেন ফ্রাইসহ নানান পদের খাবার পাওয়া যায়। খরচ পড়বে জনপ্রতি ৬০ থেকে ৩০০ টাকা।

এছাড়া পিকনিক, জন্মদিনসহ যেকোনো অনুষ্ঠানে এই পার্ক ভাড়া নেয়া যায়। অনুষ্ঠানের অতিথিদের জন্য বিভিন্ন মূল্যের প্যাকেজে খাওয়ার ব্যবস্থা আছে।

প্রতিটি রাইডে ওঠার মূল্য জনপ্রতি ৪০ থেকে ৬০ টাকা। পার্কের প্রবেশমূল্য জনপ্রতি ৫০ টাকা হলেও এখানে প্রতিবন্ধী শিশুদের প্রবেশ করতে কোনো টিকিট লাগে না। এছাড়া, পার্কে প্রবেশ, ৮টি রাইড, নাশতাসহ একটি প্যাকেজ আছে, যা জনপ্রতি ৩০০ টাকা।

যেভাবে যাবেন
মিরপুর ১ নম্বর বাসস্ট্যান্ড কিংবা মাজার রোড নেমে রিকশায় তামান্না ওয়ার্ল্ড ফ্যামিলি পার্কে যাওয়া যায়।

সম্পর্কিত পোস্ট