ক্যান্সার রোধ করে শুকনা মরিচ

70
ছবি: সংগৃহীত

ঝালে ভরা শুকনা মরিচ। মরিচ বা লঙ্কা এক প্রকারের মসলা হিসাবে ঝাল স্বাদের জন্য রান্নায় ব্যবহার করা হয়। মরিচের ফলকে মসলা হিসাবে ব্যবহার করা হয়।

মরিচকে দুইভাবে আমরা ব্যবহার করে থাকি। সবুজ মরিচকে আমরা কাঁচা মরিচ হিসেবে চিনি অন্যদিকে মরিচ শুকিয়ে লাল হয়ে গেলে তাকে আমরা শুকনো মরিচ হিসেবে চিনে থাকি।

শুকনা মরিচ ও কাঁচা মরিচের কার্যকারিতা প্রায় এক হলেও কাঁচা মরিচ ও শুকনা মরিচ এর গুনাগুনের কিছু তফাৎ লক্ষ্য করা যায়। শুকনো মরিচে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ”এ” ও ”সি” থাকে। তাই নিয়মিত এই মরিচ খেলে শরীরে ভিটামিন-সি এর অভাব দূর করে।

এবার জেনে নেওয়া যাক শুকনো মরিচের উপকারি কিছু গুণ সম্পর্কে-

হজম শক্তি বৃদ্ধি করে
শুকনো মরিচ হজম শক্তি বাড়ায়। আঁশ জাতীয় খাবার হওয়ার কারণে হজম ত্বরান্বিত হয়।

ব্যথা কমায়
গিটে গিটে ব্যথা কমায়, শুকনা মরিচে থাকা ভিটামিন-ই ব্যাথা কমানোর কাজ করে।

ক্যান্সার রোধ করে
লাল মরিচে থাকা ফাইটোনিউট্রিয়েন্টস কোলন ক্যান্সার ও স্তন ক্যান্সার রোধে কাজ করে।

দৃষ্টিশক্তি বৃদ্ধি করে
লাল মরিচে পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন-এ থাকায় এটি দৃষ্টিশক্তি বৃদ্ধি করতেও কাজ করে।

ক্ষুধা নিবারন করে
লাল মরিচের ক্যাপসাইসিন উপাদানটি আপনার ক্ষুধা কমিয়ে আনবে। সবসময় পেট ভরা অনুভূতি কাজ করবে।

উচ্চ রক্তচাপ কমায়
উচ্চরক্ত চাপ কমাতেও একটি ভালো ভূমিকা পালন করবে এই মরিচ। এর অন্যতম উপাদান আঁশ যা রক্ত সঞ্চালনে সহায়তা করে।

ভিটামিনের অভাব দূর করে
টক টকে লাল শুকনা মরিচে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ”এ” ও ”সি” উপস্থিত। তাই শরীরে ভিটামিন ”এ” ও ”সি”-এর অভাব থাকলে নিয়মিত খেতে পারেন।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি করে
শরীরে রোগ প্রতিরোধ করার ক্ষমতা তৈরি করতে শুকনা মরিচ খুব কার্যকরী ভূমিকা রাখে এবং বাতের ব্যথাও রোধ করতে সক্ষম শুকনা লাল মরিচ।

সর্দি-কাশিতে সাহায্য করে
সর্দি হলেও শুকনা মরিচ খাওয়ার পরামর্শ দেন অনেকেই। কেননা এতে নাক বন্ধ থাকলে উপকার পাবেন।

সূত্র: আয়ুর্বেদিক টিপস