ওষুধে বাড়ানো উত্তেজনায় যৌন জীবনের সর্বনাশ

385

কমে যাচ্ছে উত্তেজনা। বিছানায় সঙ্গীর পাশে সেভাবে ইচ্ছে হচ্ছে না মিলনের। বাড়ছে চিন্তা। সম্পর্কে প্রভাব পড়বে না তো। পরামর্শ নিয়ে হয়তো আশ্রয় নিলেন ভায়াগ্রা-জাতীয় ওষুধের।

কিন্তু যৌনজীবন আগের মতো ফিরে এলেও হয়তো শুরু হয়ে গেল অন্য ধরনের শারীরিক অসুবিধা। তা হলে?

যৌনজীবন ধরে রাখতে ভায়াগ্রার গুরুত্ব অনস্বীকার্য। কিন্তু গোল বাধছে ভায়াগ্রার মতো ওষুধ তৈরির সময়। এই ওষুধগুলি বানানোর সময় এমন সব কেমিক্যাল কমপাউন্ড মেশানো হচ্ছে যে তাতে দেখা যাচ্ছে নানা পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া।

ফিলবানসেরিন নামে এক ধরনের পিলে এই প্রবণতা লক্ষ করা গিয়েছে। হল্যান্ডের একদল গবেষক এই ফিলবানসেরিন পিল নিয়ে একটি পরীক্ষা চালায়। পাশাপাশি ওই পিল ব্যবহারকারী মহিলাদের উপরেও চলে সমীক্ষা।

সমীক্ষার তথ্য ইন্টারন্যাশনাল মেডিসিন প্রকাশিত করেছে।

৮টি ভিন্ন ভিন্ন পরীক্ষায় ফিলবানসেরিন ব্যবহারকারী ৫ হাজার ৯১৪ জন মহিলার থেকে পাওয়া তথ্য বলছে, এরা সকলেই এখন একটুতেই ক্লান্ত হয়ে যান। এদের মধ্যে অনেকেই সর্বোচ্চ একমাস তাঁদের যৌন জীবনের তৃপ্তি খুঁজে পেয়েছিলেন, কিন্তু সময় যত গড়িয়েছে ততই ফের কমতে শুরু করেছে যৌন উত্তেজনার ইচ্ছে। যাঁরা দিনে চারবার করে ফিলবানসেরিন নিচ্ছেন তাঁরা ভুগছেন মাত্রারিক্ত ঘুম এবং মাথা ঝিমঝিম করা রোগে।

পরীক্ষাতে আরও প্রমাণিত হয়েছে, ফিলবানসেরিন পিল মহিলাদের যৌনাঙ্গ এবং যৌনতা সচেতনকারী হরমোনগুলির নিঃসরণ বাড়াতে সাহায্য করে, তার থেকে বেশি প্রভাব ফেলে মস্তিষ্কে। যার জেরে মহিলারা আক্রান্ত হচ্ছেন নিম্ন রক্তচাপের মতো রোগে। যাঁরা আবার অ্যালকোহলের সঙ্গে ফিলবানসেরিন নিয়ে থাকেন তাঁদের ফিটের ব্যামোও ধরা পড়ছে।

সুতরাং, যৌন জীবন কোনওভাবে ব্যাহত হচ্ছে মানে চট করে ভায়গ্রার পিল খেতে শুরু না করাটাই ভালো। চিকিৎসকের মত নিয়েই এই ধরনের পিল গ্রহণ করুন, নচেৎ যৌন জীবনের উত্তেজনা বাড়াতে গিয়ে তা সারাজীবনের মতো সমস্যা তৈরি করতে পারে।