এনআইডি নবায়নের বাধ্যবাধকতা তুলে নিয়েছে ইসি

10
ছবি: সংগৃহীত

এনআইডি নবায়নে নাগরিকদের ছাড় দিল নির্বাচন কমিশন (ইসি)। জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন আইন অনুযায়ী, মেয়াদ শেষ হলে নির্দিষ্ট অর্থ পরিশোধ করে এনআইডি নবায়নের বিধান রয়েছে। অনেকের এনআইডির মেয়াদ ইতোমধ্যে শেষ হয়ে গেছে। ফলে তারা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সেবা পাওয়া থেকেও বঞ্চিত হচ্ছিলেন। তাই ‘আপাতত’ নবায়নের বাধ্যবাধকতা তুলে দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলোকে মেয়াদোত্তীর্ণজনিত কারণে কাউকে সেবা প্রদান থেকে বিরত না থাকার নির্দেশনাও দিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

এনআইডি অনুবিভাগের কমিউনিকেশন শাখার অফিসার ইনচার্জ স্কোয়াড্রন লীডার কাজী আশিকুজ্জামান জানিয়েছেন, যেসব সাময়িক জাতীয় পরিচয়পত্রের মেয়াদ ইস্যুর তারিখ থেকে দুই বছর ছিল, সেসব জাতীয় পরিচয়পত্রের মেয়াদ অনির্দিষ্ট সময়ের জন্য বর্ধিত করা হলো। ফলে সব প্রকার সাময়িক জাতীয় পরিচয়পত্র এখন থেকে বৈধ হিসেবে ব্যবহার করা যাবে।

সব সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান সেবা গ্রহীতার কার্ড এনআইডি সিস্টেম থেকে চেক করে প্রয়োজনীয় সেবা প্রদান করতে পারবেন।

মেয়াদের কারণে সেবা গ্রহীতাকে কোনো সেবা প্রদান থেকে বঞ্চিত না করার জন্য অনুরোধ করা হলো।

এছাড়াও যাদের জাতীয় পরিচয়পত্রের পেছনে মেয়াদ উল্লেখ আছে তারা প্রয়োজনে https://services.nidw.gov.bd লিংকে গিয়ে রেজিস্ট্রেশন করে ডাউনলোড অপশন থেকে বিনামূল্যে জাতীয় পরিচয়পত্র (মেয়াদ উল্লেখ ব্যতীত ও অফিস থেকে প্রাপ্ত কার্ডের মতো রঙ্গিন) ডাউনলোড পূর্বক মুদ্রণ ও লেমিনেটিং করে ব্যবহার করতে পারবেন।

জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন আইনে এনআইডি মেয়াদ উল্লেখ করা হয়েছে দশ বছর। কিন্তু লেমিনেটিং করা এনআইডির পেছনে দুই বছর মেয়াদ দিয়েও অনেককে কার্ড সরবরাহ করেছে ইসি।

দেশে বর্তমান ভোটার সংখ্যা ১১ কোটি। যার মধ্যে প্রায় দশ কোটি নাগরিকের হাতে এনআইডি রয়েছে। এদের অর্ধেক পেয়েছে স্মার্টকার্ড।