স্মৃতিশক্তি বাড়ানোর জন্য ব্যায়াম

বিডিহেডলাইন ডেস্ক: স্মৃতিশক্তি বাড়ানোর জন্য নির্দিষ্ট মাত্রায় শারীরিক অনুশীলন প্রয়োজন। তবে এ জন্য বিক্ষিপ্তভাবে অনুশীলন করলেই হবে না। জেনে নিতে হবে সঠিক উপায়। আর সঠিক উপায়ে শারীরিক অনুশীলনের মাধ্যমে স্মৃতিশক্তি বাড়ানো যাবে সহজেই। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে এসএমএইচ।

আপনি যদি কোনো একটি বিদেশি ভাষা শিখতে চান, কঠিন একটি পরীক্ষায় পাস করতে চান কিংবা কঠিন একটি বই আত্মস্থ করতে চান সেক্ষেত্রে মস্তিষ্কের ক্ষমতা ও স্মৃতিশক্তি বাড়ানোর বিকল্প নেই। আর এ ক্ষেত্রে কার্যকর উপায় কী হতে পারে, তা উঠে এসেছে এক গবেষণায়।

চার ঘণ্টা পর অনুশীলন
গবেষকরা বলছেন, চার ঘণ্টা পর অ্যারোবিক এক্সারসাইজ স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি করতে ভূমিকা রাখে। এক্ষেত্রে সঠিক উপায়টি জানিয়েছেন গবেষকরা। তারা বলছেন, ধরুন আপনার একটি বই ভালোভাবে পড়ে আত্মস্থ করতে হবে। এজন্য বইটি কিছুক্ষণ পড়ুনন। এরপর চার ঘণ্টা অন্য কোনো কাজ করুন। এরপর পর্যাপ্ত শারীরিক অনুশীলন করুন। এক্ষেত্রে অ্যারোবিক এক্সারসাইজ সবচেয়ে কার্যকর।

ঠিক কোন কোন শারীরিক অনুশীলন আপনার স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি করবে, এ বিষয়ে কোনো নির্দেশনা দেনটি গবেষকরা। তবে তারা বলছেন, যেসব অনুশীলনে খুব দ্রুত শরীর নড়াচড়া করা হয় সেগুলোই কার্যকর।
কিন্তু কী কারণে বই পড়ার পর চার ঘণ্টা অপেক্ষা করার পরামর্শ দিচ্ছেন গবেষকরা? এ প্রসঙ্গে তারা জানিয়েছেন, বিষয়টি গবেষণায় উঠে এসেছে যে, চার ঘণ্টা অপেক্ষার পর শারীরিক অনুশীলনই সবচেয়ে কার্যকর। কিন্তু কী কারণে এ চার ঘণ্টা অপেক্ষা, তার কোনো উত্তর এখনও মেলেনি।

গবেষণাটি করেছেন নেদারল্যান্ডসের র্যা ডবাউড ইউনিভার্সিটির গবেষকরা। বিষয়টি অনুসন্ধানের জন্য তারা ৭২ জন অংশগ্রহণকারীর ওপর অনুসন্ধান চালান। গবেষণায় তাদের ৪০ মিনিট করে একটি বিষয় পড়ার জন্য বলা হয়। এরপর বিভিন্ন সময় বিরতিতে তাদের স্মৃতিশক্তি পরীক্ষা করা হয়। এ ছাড়া বিভিন্ন বিরতিতে শারীরিক অনুশীলনের প্রভাবও পরীক্ষা করা হয়। এতে দেখা যায়, পড়ার চার ঘণ্টা পর শারীরিক অনুশীলনে সবচেয়ে ভালো কাজ হয়।

গবেষণাটির ফলাফল সেল প্রেস জার্নাল কারেন্ট বায়োলজিতে প্রকাশিত হয়েছে।