মেকআপ ছাড়াই আকর্ষণীয় হতে চান?

রূপচর্চা ও সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য কেমিক্যাল এবং মেকআপ সামগ্রী আজকাল যেন অপরিহার্য। কিন্তু মেকআপ ও কেমিক্যাল পণ্য একেবারেই ব্যবহার না করেও নিজের চেহারার মাঝে সৌন্দর্য আনা যায় এবং ত্বকের যত্নও নেওয়া সম্ভব হয়।

খুব সহজ এবং সাধারণ কিছু উপাদান ব্যবহারের মাধ্যমেই নিজেকে আকর্ষণীয় করে তোলা সম্ভব। আসুন আজকে জেনে নিই তেমন কিছু উপাদান ও তার ব্যবহার।

(১) উজ্জ্বল এবং পুষ্টিকর ত্বকের জন্য টমেটো:
টমেটো এবং চিনি দিয়ে তৈরি ফেস স্ক্রাব ত্বকের জন্য এতো চমৎকার কাজ করে যে, যে কোন ধরণের ত্বকের সাথে খুব সহজেই মানিয়ে যায়। শুধু সেটাই নয়, এটি ত্বকের উপরিভাগের মরা চামড়া তুলে ফেলে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।

ব্যবহারবিধি:
টমেটো পাতলা স্লাইস করে কেটে এর উপরে চিনি ছিটিয়ে দিন। এরপর এই স্লাইস মুখে ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে ঘষুন ১০ মিনিট সময় নিয়ে। এরপর কিছুক্ষণ রেখে দিয়ে পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে অন্তত ৩-৪ বার এটি করুন।

(২) চোখের নীচের কালো দাগ দূর করতে দুধ:
চোখের নীচের কালো দাগ কিংবা ডার্ক সার্কেল খুবই বিরক্তিকর একটি সমস্যা। অনেকেই জানেন যে শসা চোখের নীচের কালো দাগ দূর করতে সাহায্য করে। তবে দুধও এক্ষেত্রে খুব দারুণ কাজ করে।

ব্যবহারবিধি:
দুইটি তুলার বলকে ঠাণ্ডা দুধে ভিজিয়ে নিয়ে চোখের নীচের কালো অংশে দিয়ে রাখুন। সপ্তাহে অন্তত ৩-৪ দিন এই নিয়ম মেনে চললে ভালো ফলাফল পাওয়া যায়।

(৩) দাঁতের হলুদ দাগ দূর করতে অ্যাপল সাইডার ভিনেগার:
অ্যাপল সাইডার ভিনেগার শুধুমাত্র স্বাস্থ্যের জন্যেই উপকারী নয়, দাঁতের বিরক্তিকর হলদেটে দাগ দূর করার ক্ষেত্রেও দারুণ উপকারী।

ব্যবহারবিধি:
এক গ্লাস পানিতে দুই চা চামচ অ্যাপল সাইডার ভিনেগার মিশিয়ে এই মিশ্রণ দিয়ে খুব ভালোভাবে কুলি করুন। সপ্তাহে ২-৩ বার এমন করলেই যথেষ্ট।

(৪) চুলকে মোলায়েম এবং উজ্জ্বল করতে কলা:
চুল ছোট হোক কিংবা লম্বা, চুলের মাঝে নিষ্প্রভ ভাব চলে আসলে খুবই বাজে লাগে দেখতে। এই সমস্যা থেকে মুক্তি দিবে সহজলভ্য কিছু উপাদান দিয়ে তৈরি ঘরোয়া হেয়ারপ্যাক।

ব্যবহারবিধি:
একটি পাকা কলা ব্লেন্ড করে তার সাথে এক টেবিল চামচ অলিভ অয়েল মেশান। খুব ভালোভাবে মেশানো হয়ে গেলে এই মিশ্রণের সাথে দুই চা চামচ মধু এবং এক চা চামচ দই দিয়ে আবারও খুব ভালোভাবে সকল উপাদান মিশিয়ে নিন। যতক্ষণ না পর্যন্ত সকল উপাদান একসাথে ভালোভাবে মিশে যাচ্ছে ততক্ষণ নাড়া বন্ধ করা যাবে না। মেশানো হয়ে গেলে এই মিশ্রণ পুরো চুলে খুব ভালোমতো এবং সমানভাবে লাগিয়ে নিয়ে হেয়ার ক্যাপ পরে নিন। আধা ঘণ্টা পর চুল ধুয়ে ফেলুন।

(৫) হাতের পরিচর্যায় ভিনেগার:
হাতের ত্বক মোলায়েম এবং নরম করতে প্রয়োজন হবে শুধুমাত্র দুইটি উপাদান। প্রাত্যহিক ব্যবহার্য ক্রিম এবং ভিনেগার।

ব্যবহারবিধি:
খুব অল্প পরিমাণে ক্রিম এবং ক্রিমের সমপরিমাণ ভিনেগার নিয়ে দুইটি উপাদান একসাথে ভালোভাবে মেশান। এরপর এই মিশ্রণ দুই হাতেই খুব যত্ন সহকারে লাগিয়ে নিন। টানা দুই সপ্তাহ ঘুমাতে যাবার আগে এই মিশ্রণ হাতে ব্যবহার করুন।

(৬) চোখের পাপড়ি ঘন করুন তেলের মিশ্রণ দিয়ে:
লম্বা এবং ঘন চোখে পাপড়ি মাশকারা ব্যবহার না করেও পাওয়া সম্ভব। এবং এর জন্যে খুব বেশি কষ্ট করারও কোন প্রয়োজন হবে না।

ব্যবহারবিধি:
সমপরিমাণ ক্যাস্টর অয়েল, আমন্ড অয়েল এবং ভিটামিন-ই একটি বোতলে নিয়ে খুব ভালোভাবে মেশান। এই মিশ্রণ প্রতিদিন রাতে ঘুমানোর আগে চোখের পাপড়িতে লাগিয়ে ঘুমান। টানা দুই সপ্তাহ এই মিশ্রণ চোখের পাপড়িতে ব্যবহার করলে খুব দ্রুত পরিবর্তন লক্ষ করা যাবে।

(৭) নখের উজ্জ্বলতা বাড়াবে লেবুর রস:
চোখের নিষ্প্রভ ভাব দূর করতে, নখের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধিতে এবং নখে পুষ্টি জোগাতে লেবুর রস দারুণ উপকারী।

ব্যবহারবিধি:
এক স্লাইস লেবু কেটে প্রতিটি নখে খুব ভালোভাবে ঘষুন ১০ মিনিট ধরে। সপ্তাহে ২-৩ বার করলেই ভালো ফলাফল পাওয়ার জন্য যথেষ্ট।