দাম্পত্যে ঝগড়াঝাটি? ৩ বিষয়ে সাবধান

দাম্পত্য জীবনে ঝগড়াঝাটি থাকবেই। এটি ভাইবোন, বন্ধু-বান্ধব কিংবা অন্য যে কোনো ঘনিষ্ঠ মানুষের সঙ্গেই হতে পারে। তবে ঝগড়াঝাটি যাই হোক না কেন, তা যে সম্পর্কের পরিসমাপ্তি ডেকে আনে এমনটা নয়।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ঝগড়াঝাটি বরং সম্পর্ককে আরও মজবুতও করতে পারে। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে টাইমস অব ইন্ডিয়া।

সঙ্গীর সঙ্গে যদি কোনো কারণে ঝগড়াঝাটি হয়েই যায় তাহলে তাতে যে মহা ক্ষতি হয়ে গেল এমনটা নয়। ঝগড়াঝাটি স্বাভাবিক বিষয়। তবে এক্ষেত্রে কয়েকটি বিষয় জেনে রাখা উচিত সবারই।

১. সাময়িকভাবে নয়, স্থায়ীভাবে সমাধান করুন
ঝগড়া যদি লেগেই যায় তাহলে তাকে সাময়িকভাবে থামিয়ে রাখার প্রয়োজন নেই। যে বিষয়ে ঝগড়া লেগেছে তা মেটানোর জন্য স্থায়ী সমাধান খুঁজুন। এক্ষেত্রে কখনোই মিছে সমাধান খুঁজবেন না। অনেক সময় মিছে সমাধানের কারণে ঝগড়া কৃত্রিমভাবে থামানো যায় কিন্তু পরবর্তীতে তা আবার শুরু হতে পারে। এ কারণে সঠিকভাবেই সমাধান করা উচিত। মিথ্যে কথার মাধ্যমে কিংবা ভুল বুঝিয়ে কোনো সমাধান সম্পর্ককে আরও বাজে দিকে নিতে পারে। কিন্তু বিষয়ের সঠিক ব্যাখ্যা ও দোষ স্বীকার সম্পর্ককে আরও বহুদূর এগিয়ে নিতে পারেত।

২. তাড়াহুড়ো নয়, সময় নিন
যে কোনো বিষয়ে ঝগড়াঝাটিতেই মাথা গরম হতে পারে। তবে মাথা গরম হলেও সেজন্য কোনোভাবেই তাড়াহুড়ো করা উচিত হবে না। এক্ষেত্রে কিছুটা সময় নিয়ে মাথা ঠাণ্ডা করে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। রাগের মাথায় কখনোই সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়া সম্ভব হয় না। তাই ঝগড়াঝাটির সময় যদি কোনো বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে হয় তাহলে অপেক্ষা করুন। রাগের মাত্রাভেদে তা অল্প সময় কিংবা কয়েকদিনও লাগতে পারে। আর আপনার যখন মাথা পুরোপুরি ঠাণ্ডা হবে তার পরেই সিদ্ধান্ত নিন। সম্পর্কের ক্ষেত্রে আপনার সঙ্গীর মাথা ঠাণ্ডা হয়েছে কি না, তাও লক্ষ্য করুন।

৩. ঝগড়ার মূল থেকে দৃষ্টি সরান
কোনো একটি সামান্য বিষয় নিয়েও ঝগড়াঝাটি হতে পারে। আর সে বিষয়টির দিকে যেন অতিরিক্ত মনোযোগ না পড়ে সেজন্য উদ্যোগী হোন। ধরুন আপনার সঙ্গীর একটি ছোট ভুলের জন্য আপনার সঙ্গীর সঙ্গে ঝগড়া লেগে গেল। এক্ষেত্রে সে ভুলটি থেকে দৃষ্টি সরিয়ে ফেলুন। অন্যথায় এটি সম্পর্ককে বাজে দিকে নিয়ে যাবে। মনে রাখতে হবে, একটিমাত্র বিষয়ে ক্রমাগত চিন্তা করে যাওয়া মোটেই স্বাভাবিক বিষয় নয়।